আশা জাগানিয়া প্রশংসনীয় উদ্যোগ

অবশেষে তিতাস পূর্বাঞ্চলের বিজয় নগর এলাকার চিকিৎসা বঞ্চিত প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত হতে চলেছে। বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালনা পর্ষদের অন্যতম সদস্য ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক একান্তসচিব র.আ.ম উবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরীর ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায় বিজয়নগরের খিরাতলা গ্রামে ইসলামিক মিশন হাসাতাল নির্মিত হচ্ছে। তারই আহবানে এলাকার ৭ জন মহৎ হৃদয়ের মানুষ সরকারকে ১০০ শতক ভূমিদান করে এলাকার সুবিধা বঞ্চিত প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর চিকিৎসা লাভের পথকে আরো সুগম করে দিয়েছেন। এলাকার সাধারণ মানুষের চিকিৎসার সুযোগ সৃষ্টির জন্য অবশ্যই ৭ জন ব্যক্তিকে সাধুবাদ জানাতে হয়। সেই সাথে এ হাসপাতালের মুল উদ্যোক্তা র.আ.ম উবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরীও প্রশংসার দাবি রাখেন।
অপ্রিয় হলেও সত্য যে, তিতাস পূর্বাঞ্চল দীর্ঘদিন যাবৎ অবহেলিত ছিল। ওই এলাকার জনগন গুর্বতর আহত হলে ৩০/৩৫ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আসতে হতো। বিজয়নগর নতুন উপজেলা হওয়ায় ভবিষ্যতে এখানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেৱঙ নির্মিত হবে। কিন্তু তা সময় সাপেৰ ব্যাপার কারণ আশুগঞ্জ উপজেলায় ১০ বছরেও স্বাস্থ্য কমপেৱঙ নির্মিত হয়নি।
সেৰেত্রে বিজয়নগরের খিরাতলা গ্রামে ইসলামিক মিশন হাসপাতাল স্বল্প সময়ের মধ্যে নির্মিত হলে ওই এলাকার এতিম, গরীব ও অসহায় মানুষজন স্বাস্থ্য সেবা লাভ করতে পারবে। বর্তমান সরকারের আমলেই বিজয়নগর উপজেলা গোষিত হয়েছে। বর্তমান সরকারের আমলেই ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালনা পর্ষদের অন্যতম সদস্য মোক্তাদির চৌধুরীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এ হাসপাতাল নির্মিত হচ্ছে। এলাকাবাসী আশা করেন শুধুমাত্র ইসলামিক মিশন হাসপাতালই নয় উন্নয়ন বঞ্চিত অবহেলিত বিজয়নগর উপজেলার উন্নয়নের নবদিগন্ত উন্মোচিত করতে মোক্তাদির চৌধুরী আরো অবদান রাখবেন।